1. news@www.banglaroitizzo.com : BanglarOitizzo :
  2. imrankhanbsl01@gmail.com : Imran Khan : Imran Khan
  3. banglaroitizzo.news@gmail.com : newseditor :
সোমবার, ১০ মে ২০২১, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন

যে পুলিশ জনতার, সে পুলিশ সবার

শাজাহানপুর প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১
  • ৩৪৯ বার পড়া হয়েছে
যে পুলিশ জনতার, সে পুলিশ সবার
ছবি : সংগৃহীত

দিন বদলের স্বপ্ন নিয়ে চলছে বাংলাদেশ পুলিশ। দুই একটি বিতর্কিত কাজ ছাড়া বাংলাদেশ পুলিশ দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে রাত দিন পরিশ্রম করে যাচ্ছে। পুলিশের যেমন ঘুমের কোন নিশ্চয়তা নেই। তেমনি কাজের কোন শেষ নেই। পুলিশ সম্ভবত একমাত্র সার্ভিস যেখানে একজন সদস্য ২৪ ঘন্টার জন্য ভর্তি হয়। পুলিশের ১ বছরে ২০ দিন নৈমিত্তিক ছুটির কথা থাকলেও পুরো ছুটি ভোগ করার সৌভাগ্য হয় না। ঝড়, বৃষ্টি, আলো, আধার সবকিছু নিয়েই পুলিশের জীবন। এমন কোন আবহাওয়া নেই যে পরিবেশে কোন কাজকে না বলার সুযোগ আছে। কখনো কখনো পুলিশ নিজের জীবন বাজি রেখে কাজ করে। আপাতদৃষ্টিতে অনেকেই পুলিশকে নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখলেও পুলিশের কাজের বিশাল ও বিস্তৃত পরিধি থাকায় তাদের দু একটি কাজ প্রশ্নবিদ্ধ হয়। তাছাড়াও ২ লাখ পুলিশ বাহিনীর কতিপয় সদস্য নিজ থেকেই অপরাধ করে। নিশ্চয়ই সেই অপরাধের দায় পুরো বাহিনীর উপর বর্তায় না। কেউ যদি তার সরকারি দায়িত্ব পালনের বাইরে গিয়ে কোন অপরাধ করে তার জন্য শাস্তির বিধান আছে। পুলিশ বাহিনী সেই শাস্তির ব্যবস্থাও করে। এতে করে বদলি,ক্লোজড, সাসপেন্ড,র‍্যাংক ডাউন, বেতন কর্তন, ইনক্রিমেন্ট বন্ধসহ চাকরিচ্যুতের মতো দন্ড দেওয়া হয়। কিন্তু পুলিশের ভাল কাজ প্রচার করতে কেন জানি সমাজটা বিরুপ। প্রকৃতপক্ষে পরিবেশ পরিস্থিতি যাকে সামাল দিতে হয় সেই বোঝে কতটা বেগ, কতটা ঝামেলা তাকে সহ্য করতে হয়। বাংলাদেশ পুলিশের একজন মাঠ পর্যায়ের অফিসার এস আই শামীম হাসান। তিনি বগুড়া জেলার শাজাহানপুর থানায় কর্মরত আছেন। এই থানায় যোগদানের শুরু থেকেই তিনি শাজাহানপুর থানা এলাকার ধনী -গরিব, সকল পেশাজীবি মানুষের সাথে মিশে গেছেন। ন্যায়ের পথ থেকে তাকে কেউ কখনো সরাতে পারেনি। তিনি সবসময় নিরপেক্ষ কথা বলেন এবং কেউ অন্যায় করলে তাকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে তিনি অপরাধ করেছেন। আর সেই অপরাধের প্রচলিত আইনে বিচার হবে। কটু কথা বলে কাউকে কখনো কষ্ট দেন নি। পথ চলতে দেখা যায় ছোট বড় সবাই তাকে শামীম ভাই বলে সম্বোধন করছে। তিনি বিরক্ত হন না এটা তার একটি বড় গুণ। মাঝেমধ্যেই এস আই শামীম হাসানকে দেখা যায় বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষের সাথে মিশে গেছেন। রাস্তার মানুষেরাও যেন এই অল্প সময়ে তার খুব চেনা হয়ে গেছে। শাজাহানপুর থানা এলাকার সবাই তাকে ভালবাসে এটা স্পষ্টতই বোঝা যায়। খুব সাধারন জীবন যাপনে অভ্যস্ত এস আই শামীমকে ফোন করলে সবাইকে গুরুত্ব দেন এবং মনোযোগ সহকারে মানুষের সুখ দুঃখের কথা শোনেন। গরীব ও দুঃখী মানুষের এক প্রিয় নাম এস আই শামীম হাসান। থানা এলাকার সব মানুষের হৃদয়ে খুব সামান্য হলেও জায়গা পেয়েছেন এই পুলিশ অফিসার। কেউ অন্যায় করলে তাকে স্পষ্ট করে বলে দেন, কি তার প্রতিদান? বিভিন্ন এলাকার বিবাদমান বিষয় রাজনৈতিক নেতা,চেয়ারম্যান, মেম্বার ও জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় আপোষ করেন। এতে করে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি কমে। এস আই শামীমেরা আসে, একসময় চলেও যায়। কিন্তু বন্ধু হয়ে থেকে যায় সাধারণ মানুষের। ব্যাক্তিত্ব নিশ্চয়ই এমনি হওয়া উচিত। ভালবাসায় বেঁচে থাকুক এস আই শামীম হাসানের মতো মানুষেরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

নিউজ ক্যাটাগরি

©দৈনিক বাংলার ঐতিহ্য (2019-2020)