1. news@www.banglaroitizzo.com : BanglarOitizzo :
  2. imrankhanbsl01@gmail.com : Imran Khan : Imran Khan
  3. banglaroitizzo.news@gmail.com : newseditor :
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
কালীগঞ্জ পৌর আ’লীগের বিশেষ বর্ধিতসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্বনাথে খেলাফত মজলিসের শূরা অধিবেশন সম্পন্ন করোনাকালে ১৭ সেপ্টেম্বর মহান শিক্ষা দিবস মাকে করোনা ভ্যাকসিন দিতে এসে মোটর বাইক চুড়ি শাজাহানপুরে ১০ টি বিট পুলিশিং কার্যালয় পরিদর্শন কালীগঞ্জ প্রেসক্লাব এর সাধারণ সম্পাদক আল-আমীন দেওয়ান এর মামীর ইন্তেকাল। বিএনপি’র নেতা খন্দকার মাহাবুবের রোগমুক্তিতে জাগপা’র দোয়া মাহফিল ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মজিবর রহমানের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন নাজমুল হক প্রধান (সাবেক এমপি) বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর সুস্থতা কামনা এনডিপি’র ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় ৬২’র শিক্ষা আন্দোলন!

রেজাউলকে ছাড়তে ৫ লাখ টাকা দাবি করেছিল এসআই মহিউদ্দিন

খান ইমরান
  • প্রকাশিত: বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১০৭ বার পড়া হয়েছে

বরিশালের শিক্ষানবিশ আইনজীবী রেজাউল করিম রেজাকে ডিবির নির্যাতনে হত্যা অভিযোগে প্রথমে মামলা দেয়নি পুলিশ। তবে পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দেয় আদালত। এখন এ ঘটনায় পুলিশও আলাদভাবে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এ ব্যাপারে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার জানিয়েছেন, অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য এসআই মহিউদ্দিন মহিকে ইতোমধ্যে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

 

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২৯ ডিসেম্বর রাতে শিক্ষানবিশ আইনজীবী রেজাউল করিমকে বরিশালের সাগরদী এলাকায় হামিদ খান সড়কে তার বাসার সামনের চায়ের দোকান থেকে আটক করে ডিবি পুলিশ। আইনজীবী রেজাউল করিমের স্ত্রী মারুফা আক্তারের বর্ণনা অনুযায়ী, ‘রাত সাড়ে ৮টার দিকে রেজাউল চায়ের দোকান থেকে চা খেয়ে বাসায় ফিরবেন, এ সময়ে চায়ের দোকানের সামনে তাকে প্রথমে ডিবির এসআই মহিউদ্দিন তল্লাশি করেন, তার কাছে কিছু না পেয়ে দু’জন মাদক কারবারির নাম দিতে বলেন। তিনি তাদের নাম দিতে না পারায় তাকে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দেন।

এরপর ছেড়ে দেয়ার জন্য পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন। ওই টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় তাকে ডিবি অফিসে নিয়ে সারা রাত নির্যাতন করেন। ওই সময় তাকে কিছু খেতেও দেয়া হয়নি। পরে তাকে ১৩৭ গ্রাম গাঁজা দিয়ে মাদক কারবারি সাজিয়ে মাদক মামলার আসামি করে কারাগারে পাঠান। মারুফা আরো বলেন, ‘আটকের পর আমার শ্বশুর ইউনূস মুন্সি ডিবি কার্যালয়ে যান। তার সামনেই আমার স্বামীকে নির্যাতন করা হয়। আমার শ্বশুর এর প্রতিবাদ করলে এসআই মহিউদ্দিন তাকেও লাথি মারতে যান। পরে আমার শ্বশুর বাড়িতে চলে আসেন।

রেজাউলের আইনজীবী জাকির হোসেন বলেন, ‘তার (রেজাউল) পরিবারের সদস্যরা থানায় মামলা করতে গেলে থানা মামলা নেয়নি। মঙ্গলবার আদালতে মামলা করলে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান মামলাটি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ডিবি অফিসে নির্মম নির্যাতনের কারণেই রেজাউল করিমের মৃত্যু হয়েছে। তার কাছে কোনো মাদক পাওয়া না গেলেও মাদক দিয়ে মিথ্যা মামলা সাজানো হয়েছে। রেজাউলের পরিবারের দায়ের করা মামলায় এসআই মহিউদ্দিন মহিসহ আরো দু’জন পুলিশ সদস্যকে আসামি করা হয়েছে। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো: শাহাবুদ্দিন খান জানান, পুলিশের পক্ষ থেকেও তদন্ত করা হচ্ছে।

তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে অভিযুক্ত এসআই মহিউদ্দিনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। আগে থানা মামলা নেয়নি কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আদালতে তো মামলা হয়েছে। এখন আমরা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবো। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ডিবির এসআই মহিউদ্দিন আগেও অনেক নিরীহ মানুষকে চাঁদা না পেয়ে হয়রানি করেছেন। তাদের তিনি মাদকসহ নানা মামলায় ফাঁসিয়ে দিয়েছেন। তবে পুলিশ কমিশনারের দাবি, আগে তার (মহিউদ্দিন) বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ তিনি শোনেননি। মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের হিসেবে গত বছরের ১২ মাসে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে ২২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ১৮৮ জন ক্রসফায়ারে আর ৩৪ জন মারা গেছেন নির্যাতনে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

নিউজ ক্যাটাগরি

UDOY ADD
©দৈনিক বাংলার ঐতিহ্য (2019-2020)